1. admin@sylhetbhumi24.com : admin :
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৫৭ অপরাহ্ন
নোটিশ :
দুবাই প্রবাসী আশিকের বিশাল সিন্ডিকেট  নারী পাচার, অবৈধ স্বর্ণ ও হোন্ডি ব্যবসা করে রাতারাতি কোটিপতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা মনিটরিং করছে পুলিশ, শ্রীমঙ্গল উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা মোঃ শরিফ উদ্দিন এর নির্দেশনা শারদীয় দুর্গাপূজা নিরাপত্তায় প্রধান করছে আনসার ভিডিপি মো:ইমরান হোসেন শ্রীমঙ্গলে প্রতিমা বিসর্জন এর মাধ্যমে শেষ হল দুর্গাপূজা আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মাহবুব মিয়ার সমর্থনে জনতার ঢল হুমায়ুন রশিদ চত্তর থেকে ০৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাচনে নৌকার পালে হাওয়া শিক্ষাক্ষেত্রে এখনও আমরা পিছিয়ে আছি : জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী কিশোরী পান্নাকে স্ত্রীর মতো ভোগ করতেন মোবাশ্বির, ক্ষোভ থেকে খুন! সাইবার ট্রাইব্যুনালে গোলাপগঞ্জের হাসিনা আহাদসহ আসামী ৪
শিরোনাম :
দুবাই প্রবাসী আশিকের বিশাল সিন্ডিকেট  নারী পাচার, অবৈধ স্বর্ণ ও হোন্ডি ব্যবসা করে রাতারাতি কোটিপতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা মনিটরিং করছে পুলিশ, শ্রীমঙ্গল উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা মোঃ শরিফ উদ্দিন এর নির্দেশনা শারদীয় দুর্গাপূজা নিরাপত্তায় প্রধান করছে আনসার ভিডিপি মো:ইমরান হোসেন শ্রীমঙ্গলে প্রতিমা বিসর্জন এর মাধ্যমে শেষ হল দুর্গাপূজা আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী মাহবুব মিয়ার সমর্থনে জনতার ঢল হুমায়ুন রশিদ চত্তর থেকে ০৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাচনে নৌকার পালে হাওয়া শিক্ষাক্ষেত্রে এখনও আমরা পিছিয়ে আছি : জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী কিশোরী পান্নাকে স্ত্রীর মতো ভোগ করতেন মোবাশ্বির, ক্ষোভ থেকে খুন! সাইবার ট্রাইব্যুনালে গোলাপগঞ্জের হাসিনা আহাদসহ আসামী ৪

রাজু হত্যা বিচার শুরু ২৬ আসামীর মধ্যে পলাতক ৫ ॥ ২২ এপ্রিল সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

সিলেটভুমি ডেস্ক ::
  • সময় : সোমবার, ২৯ মার্চ, ২০২১
  • ১৩০ ৯৮ বার পঠিত

পৌনে তিন বছর পর ছাত্রদল নেতা রাজু হত্যা বিচার শুরু

সিলেট নগরীর কুমারপাড়ায় পৌনে ৩ বছর আগে খুন হওয়া সিলেট ল’ কলেজের ছাত্র ফয়জুল হক রাজু হত্যা মামলার ২৬ আসামীর বিচার শুরু হয়েছে। সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিশেষ দায়রা জজ শাহরিয়ার কবির আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে বিচার শুরু করেন। গত বৃহস্পতিবার ২৬ আসামীর মধ্যে ২১ আসামীর উপস্থিতিতে বিচার কাজ শুরু হলো। প্রধান আসামী ছাত্রদল ক্যাডার আব্দুর রকিব চৌধুরীসহ ৫ আসামী এখনোও পলাতক।

দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট সরওয়ার আহমদ চৌধুরী আবদাল  বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,

বিচার বিলম্বে শুরু করার জন্যে আসামীপক্ষ চেষ্টা করেছে। আদালত অভিযোগ গঠন করে আগামী ২২ এপ্রিল সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেছেন। এ জন্যে ১ থেকে ৫ নম্বর সাক্ষীর প্রতি সমন ইস্যু করা হয়েছে।
আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দন্ডবিধি ১৪৩/৩৪১/১১৪/৩০৭/৩২৪/৩২৫/৩২৬/৩০২/৩৭৯/৪২৭/৩৪ ধারায় আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে, তারা হলেন- ফেঞ্চুগঞ্জের ঘিলাছড়ার আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরীর পুত্র আব্দুর রকিব চৌধুরী (৩৭), নগরীর তেররতনের বজলুল হোসেন প্রকাশ বজলু মিয়ার পুত্র দেলোয়ার হোসেন দিনার (২৯), ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের বেতকুড়ির আব্দুল বারি প্রকাশ আব্দুল বারিক এর পুত্র এনামুল হক (৩১), একই উপজেলার বাঘাইতলা গ্রামের আব্দুল বারি প্রকাশ আব্দুল বারিকের পুত্র একরামুল হক (২২), দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দির মৃত সুলেমান আলীর পুত্র মো: মোস্তাফিজুর রহমান (৩১), হবিগঞ্জ সদরের পইল মোল্লা বাড়ির মৃত শেখ সাজিদ মিয়ার পুত্র শেখ মো: নয়ন মিয়া (৩০), শাহজালাল উপশহরের সৈয়দ রেজাউল হকের পুত্র সৈয়দ আমিরুল হক সলিড (৩৭), তেররতনের মৃত বাবুল মিয়ার পুত্র ফরহাদ আহমদ (২৮), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের শ্রীঘর গ্রামের আব্দুল শুকুরের পুত্র সাদ্দাম হোসেন (৩১), সোনারপাড়ার মৃত মতিউর রহমান খানের পুত্র মুহিবুর রহমান খান রাসেল (১৮), তেররতনের দুলাল মিয়ার পুত্র রাসেল আহমদ ওরফে রাসেল ওরফে কালা রাসেল ওরফে কানা রাসেল (১৮), কানাইঘাটের ছোটদেশের (সত্তিপুর) মৃত কুদরত উল্লাহর পুত্র আরাফত এলাহী প্রকাশ বাবু (৩৩), আলফু মিয়া, বিয়ানীবাজারের বালিঙ্গার মোফাক্কর আলী চৌধুরীর পুত্র মোফাজ্জল চৌধুরী মুর্শেদ (২৬), ছাতকের তাঁতীকোনার মৌলভী আব্দুল হক ওরফে আব্দুল হক (২য়) বাবুল মিয়া এর পুত্র শহিদুল হক সুফিয়ান (৩০), দক্ষিণ সুরমার গোয়ালগাঁওয়ের মৃত ইসলাম মিয়ার পুত্র নজরুল ওরফে জুনিয়র নজরুল (২৫), রায়নগরের (মিতালী ২৫), সিরাজুল ইসলামের পুত্র ফাহিম আহমদ তোহা (২৮), বিয়ানীবাজারের জন্দরপুরের মৃত আতিকুল হক চৌধুরীর পুত্র আফজাল প্রকাশ আবজল আহমদ চৌধুরী (৩০), দক্ষিণ সুরমার সিলামের (আখিলপুর) মৃত আব্দুল মালিক প্রকাশ মানিক চৌধুরীর পুত্র সাহেদ আহমদ চৌধুরী (২৫), তাহিরপুরের গোবিন্দশ্রী গ্রামের মৃত আব্দুল গফফারের পুত্র রুবেল মিয়া (২৪), দিরাইয়ের ভাটিপাড়ার আতাউল করিমের পুত্র মামুন আহমদ (২৫), জকিগঞ্জের নিলাম্বরপুরের মৃত ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীর পুত্র জুমেল আহমদ চৌধুরী (২৯), সিলেট শহরতলীর মীরেরচকের মৃত ইরশাদের পুত্র মুহিত ওরফে মুহিব (৩০), দক্ষিণ সুরমার চান্দাই পশ্চিমপাড়ার সৈয়দ শফিকুল কাদি বাচ্চু মিয়ার পুত্র মুর্শেদ আলম প্রকাশ রাহেল আহমদ (৩০), নগরীর ঝর্ণারপাড়ের টেনাই মিয়ার পুত্র জাবেদ আহমদ প্রকাশ জাবেদ (৩০) এবং লাখাই উপজেলার মোড়াকুড়ি গ্রামের শফিকুল ইসলামের পুত্র জামাল মিয়া প্রকাশ জালাল (২৩)।
সূত্র জানায়, আসামীদের মধ্যে দেলোয়ার হোসেন দিনার, সৈয়দ আমিরুল হক সলিড, মোফাজ্জল চৌধুরী মুর্শেদ ও রুবেল মিয়া বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন। শেখ নয়ন মিয়া, মামুন আহমদ, আফজাল আহমেদ চৌধুরী, আরাফাত এলাহী বাবু, আলফু মিয়া, ফরহাদ আহমদ, একরামুল হক, ফাহিম আহমদ তোহা, মুহিবুর রহমান রাসেল, রাসেল আহমদ ওরফে রাসেল, জামাল মিয়া ওরফে জালাল, মুস্তাফিজুর রহমান, এনামুল হক, সাদ্দাম হোসেন নজরুল ওরফে জুনিয়র নজরুল, মুহিত ওরফে মুহিব ও জুমেল আহমদ বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। হত্যাকান্ডের পরই গোপনে লন্ডনে পালিয়ে যান প্রধান আসামী আব্দুর রকিব চৌধুরী। এছাড়াও শহিদুল হক সুফিয়ান, সালেহ আহমদ চৌধুরী, মুর্শেদ আলম প্রকাশ রাহেল আহমদ, জাবেদ আহমদ ওরফে জাবেদ পলাতক রয়েছেন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, তদন্ত শেষে গত ২০১৯ সালের ১২ মে কোতোয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক অনুপ কুমার চৌধুরী ২৬ জনকে আসামী করে বিচারিক আদালতে অভিযোগপত্র দেন। অভিযোগপত্র নম্বর ১৭৫। সিলেট মহানগর দায়রা জজ মো: আব্দুর রহিমের আদালতে মামলার কার্যক্রম চলাকালে গত ৯ নভেম্বর মামলাটি চাঞ্চল্যকর মামলা হিসেবে দ্রুত বিচার ও নিষ্পত্তির জন্যে সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। এরপর মামলার অভিযোগ গঠনের দিন ধার্য্য থাকলেও আসামীপক্ষ নানা কারণ তুলে ধরে সময় প্রার্থনা করায় অভিযোগ গঠন পিছিয়ে যায়। গত ৪ জানুয়ারি, ৩ ফেব্রুয়ারি, ১৬ ফেব্রুয়ারি ও ৮ মার্চ সময় চেয়ে আদালতে আবেদন করেন আসামীপক্ষ। গত বৃহস্পতিবারও একইভাবে আসামীপক্ষ সময়ের আবেদন করেন। কিন্তু আদালত এই আবেদনকে আমলে না নিয়ে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষীর প্রতি সমন ইস্যুর আদেশ দেন। মামলার বাদীসহ ৫ সাক্ষী ঐদিন সাক্ষ্য দেবেন।
নিহতের চাচা ও মামলার বাদী, সিলেট জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মো: দবীর আলী অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু হওয়ায় আদালতের প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, সাক্ষ্য প্রমাণে লোমহর্ষক হত্যাকান্ডটি আদালতে প্রমাণ করব। কত নিষ্ঠুর ও ভয়ংকরভাবে পূর্ব পরিকল্পিত এই হত্যাকান্ড। তিনি দ্রুত মামলার ন্যায় বিচারের দাবি জানান।
প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১১ আগস্ট রাতে নগরীর কুমারপাড়া পয়েন্টে নগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক ফয়জুল হক রাজুকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে ছাত্রদলেরই আরেক গ্রুপের ক্যাডাররা। তার শরীরে ৪০টিরও বেশি আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। ছাত্রদল ক্যাডার আব্দুর রকিব চৌধুরীর নেতৃত্বে তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয় বলে নিহতের স্বজনরা অভিযোগ করেন। এঘটনায় রাজুর সঙ্গী জাকির হোসেন উজ্জ্বল প্রাণে রক্ষা পেলেও সে এখন প্রায় পঙ্গু। সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার পর বিজয় মিছিল থেকে তাকে ডেকে নিয়ে এই হত্যাকান্ড ঘটানো হয়। রাজু ছাত্রদলে সম্পৃক্ত থাকলেও তার পুরো পরিবার ও স্বজনরা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত।

উৎসব-সিলেটের ডাক 

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
🔻 আরও পড়ুন