1. admin@sylhetbhumi24.com : admin :
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
কঠোর লকডানে সিলেটের চা বাগানে স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই; স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে শ্রমিকরা সিলেটে একদিনে  ৮ জনের মৃত্যু সিলেটে চলছে কঠোর লকডাউন শুক্রবার থেকে ২ সপ্তাহের কঠোর লকডাউন সিলেটে কোরবানির মাংসের হাট,প্রতিবছরই এই দিনে চোখে পড়ে এমন জটলা তবে এবার তুলনা মুলক কম গোলাপগঞ্জে এলিম চৌধুরীর অর্থায়নে ২০০ মানুষের মধ্যে ত্রান বিতরণ_____ বিশ্বনাথ উপজেলা বাসীকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইমতিয়াজ কামরান তালুকদার তরুণ প্রজন্মের মানবিক যোদ্ধা দানশীল ব্যাক্তি ইমতিয়াজ কামরান তালুকদার দেশ থিয়েটার সিলেটের উদ্যোগে ঈদুল আযহার ঈদ সামগ্রী বিতরণ এক সপ্তাহে সিলেট অঞ্চলে করোনায়  কেড়ে নিয়েছে অর্ধশতজনের প্রাণ ঈদুল আযহার পরে সিলেটের অবস্থা আরও ভয়াবহ হতে পারে
শিরোনাম :
কঠোর লকডানে সিলেটের চা বাগানে স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই; স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে শ্রমিকরা সিলেটে একদিনে  ৮ জনের মৃত্যু সিলেটে চলছে কঠোর লকডাউন শুক্রবার থেকে ২ সপ্তাহের কঠোর লকডাউন সিলেটে কোরবানির মাংসের হাট,প্রতিবছরই এই দিনে চোখে পড়ে এমন জটলা তবে এবার তুলনা মুলক কম গোলাপগঞ্জে এলিম চৌধুরীর অর্থায়নে ২০০ মানুষের মধ্যে ত্রান বিতরণ_____ বিশ্বনাথ উপজেলা বাসীকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইমতিয়াজ কামরান তালুকদার তরুণ প্রজন্মের মানবিক যোদ্ধা দানশীল ব্যাক্তি ইমতিয়াজ কামরান তালুকদার দেশ থিয়েটার সিলেটের উদ্যোগে ঈদুল আযহার ঈদ সামগ্রী বিতরণ এক সপ্তাহে সিলেট অঞ্চলে করোনায়  কেড়ে নিয়েছে অর্ধশতজনের প্রাণ ঈদুল আযহার পরে সিলেটের অবস্থা আরও ভয়াবহ হতে পারে

মানবতার ফেরিওয়ালা ইমতিয়াজ কামরান তালুকদার সেচ্ছায় রক্তদান করলেন

প্রশাসন
  • সময় : শনিবার, ৮ মে, ২০২১
  • ১০২ ৯৮ বার পঠিত

 

 

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি আজীবন সদস্য ও সিলেট ফ্রিডম ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও প্রধান পৃষ্ঠপোষক মানবতার ফেরিওয়ালা মো. ইমতিয়াজ কামরান তালুকদার সেচ্ছায় রক্তদান করলেন।তিনি বলেন আমি অসংখ্যবার স্বেচ্ছায় রক্ত দান করেছি।পৃথিবীতে যদি কেউ মানব তার বড় সূচক খুঁজে বের করতে চায়,তাহলে রক্তদান হলো সবচেয়ে বড় সূচক।সেচ্ছায় নিজে রক্তদান করি সেলেব্রিটি হওয়ার জন্য ব্লাড ডোনেট করি না। শুধু রোগীর মুখের স্নিগ্ধ হাসি আর ভালবাসা এবং রোগীর প্রশান্তিতে তাদের চোখে আনন্দের অশ্রু দেখতে ভাললাগে।এখানে সেলেব্রিটি হওয়ার ইচ্ছা নেই।দেশে করোনা সংক্রমণের পর লকডাউন শুরু হলে কর্মহীন হয়ে পড়েন নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। এতে করে অনেকের ঘরেই খাদ্য সংকট দেখা যায়।সিলেট নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে সমাজের সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে বিনামূল্যে মাস্ক-স্যানিটাইজার ও সাবান,খাদ্য সামগ্রী বিতরণ,নগদ অর্থ প্রদান,নিজ হাতে রান্না করে খাবার বিতরণ,
লিফলেট বিতরণ,রমজানে উপহার সামগ্রী বিতরণ,চা শ্রমিকদের উপহার সামগ্রী বিতরণ, ইফতার বিতরণ সহ নানা সমাজসেবা মূলক কার্যকম করেছেন।তিনি বলেন রোগীর আনন্দের অশ্রু দেখে নিজেকে পৃথিবীতে সব থেকে বেশি সুখী মানুষ মনে করি।আমি যখন একজন মুমূর্ষ রোগী কে রক্তদান করতে পারি তখন নিজেকে পৃথিবীতে সব থেকে বেশি সুখী মানুষ মনে করি।তখন কার অনুভূতি অসাধারন যা আসলে বলে বুঝানোর মত না।রোগীদের রক্তদান করতে গিয়ে আমি কারো ভাই হয়েছি কারো মামা হয়েছি কারো আপনজন হয়েছি আর কত কিছু বলে শেষ করা যাবে না।রোগীর মুখের স্নিগ্ধ হাসি দেখেছি, প্রশান্তিতে তাদের চোখে আনন্দের অশ্রু দেখেছি।যতদিন বেঁচে আছি এই কাজের সাথেই থাকতে চাই।আসুন আমরা নিজে রক্তদান করি এবং অন্যকে রক্তদানে উৎসাহিত করি।আপনার এক ব্যাগ রক্তে বাঁচতে পারে একটি প্রাণ তাহলে কেন করবেন না সেচ্ছায় রক্ত দান।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
🔻 আরও পড়ুন

ফেসবুকে আমরা