1. করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় হাটের পাশাপাশি অনলাইনেও পশু বেচা-কেনার ব্যবস্থা করেছে সরকার। দেশের ৮টি বিভাগে অনলাইনে গত ১৫ দিনে ২ লাখ ৬৩ হাজার ২১৬টি পশু বিক্রি হয়েছে।

এর মধ্যে সিলেট বিভাগে বিক্রি হয়েছে ২ হাজার ৬১৯টি পশু।

গত ২ থেকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে অনলাইনে পশু বিক্রির হিসেব তুলে ধরে এসব তথ্য জানিয়েছে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর।

অধিদফতর জানায়, কোরবানির পশু কেনা-বেচার জন্য বর্তমানে অনলাইন প্লাটফর্মের সংখ্যা ১ হাজার ৭৬৮টি। এর মধ্যে সরকারি উদ্যোগে পরিচালিত হচ্ছে ৬০২টি আর বেসরকারি উদ্যোগে ১ হাজার ১৬৬টি। এসব অনলাইন বাজারে ১৫ দিনে ১৬ লাখ ৫৮ হাজার ৬১২টি কোরবানিযোগ্য পশুর তথ্য আপলোড করা হয়েছে।

এর মধ্যে সিলেট বিভাগে ২ হাজার ৫৮৬টি গরু-মহিষ এবং ৩৩টি ছাগল-ভেড়া, ঢাকা বিভাগে ৩২ হাজার ৩৮৩টি গরু-মহিষ এবং ২ হাজার ৮৯২টি ছাগল-ভেড়া, চট্টগ্রাম বিভাগে ১ লাখ ১৩ হাজার ৬৮১টি গরু-মহিষ এবং ২৪ হাজার ৫১৩টি ছাগল-ভেড়া, রাজশাহী বিভাগে ২২ হাজারটি গরু-মহিষ এবং ১৫ হাজার ২৯১টি ছাগল-ভেড়া, খুলনা বিভাগে ৭ হাজার ৪০৪টি গরু-মহিষ এবং ৫ হাজার ৭২৯টি ছাগল-ভেড়া, বরিশাল বিভাগে ১ হাজার ৫৫১টি গরু-মহিষ এবং ২৮০টি ছাগল-ভেড়া, রংপুর বিভাগে ২৩ হাজার ৪১০টি গরু-মহিষ এবং ৯ হাজার ৮৭৪টি ছাগল-ভেড়া ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১ হাজার ২২৪টি গরু-মহিষ এবং ৬৫টি ছাগল-ভেড়া অনলাইনে বিক্রি হয়েছে।

গত ২ জুলাই থেকে জেলাভিত্তিক অ্যাপ, ফেসবুক পেজ ও বিভিন্ন অনলাইন সাইটের মাধ্যমে পশু বিক্রি শুরুর উদ্যোগ নেয় প্রাণিসম্পদ অধিদফতর। আর ৪ জুলাই ‘ডিজিটাল হাট’ নামে আরও একটি প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন করা হয়।

প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের তথ্যমতে, দেশে বর্তমানে ৪৫ লাখ ৪৭ হাজার গরু-মহিষ, ৭৩ লাখ ৬৫ হাজার ছাগল-ভেড়া এবং অন্যান্য ৪ হাজার ৭৬৫ পশুসহ মোট ১ কোটি ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৭৬৫টি কোরবানিযোগ্য গবাদিপশু রয়েছে।