1. admin@sylhetbhumi24.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযানে ৫ প্রতিষ্টানে জরিমানা শ্রীমঙ্গল লোকনাথ মন্দিরে শীত বস্ত্র বিতরণ কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া বন থেকে মানবদেহের কঙ্কাল উদ্ধার কমলগঞ্জে ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযানে অনিয়মের দায়ে ৪ প্রতিষ্টানকে জরিমানা শ্রীমঙ্গলে স্কুলছাত্রের উপর হামলার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন মৌলভীবাজারে ট্রাফিক পুলিশের জন্য ব্যারাকের উদ্বোধন মৌলভীবাজারে ফিরছে করোনা, নতুন করে আক্রান্ত ২৯ জন কমলগঞ্জে জলাশয় থেকে নারীর মৃতদেহ উদ্ধার বিশ্বভালবাসা দিবসে আসছে চৌধুরী কামাল ও সালমার দ্বিতীয় ভার্সন প্রাণনাথ-২ জাতীয় সংসদে সভাপতিমন্ডলীর তালিকায় প্রথমস্থানে উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি
শিরোনাম :
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযানে ৫ প্রতিষ্টানে জরিমানা শ্রীমঙ্গল লোকনাথ মন্দিরে শীত বস্ত্র বিতরণ কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া বন থেকে মানবদেহের কঙ্কাল উদ্ধার কমলগঞ্জে ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযানে অনিয়মের দায়ে ৪ প্রতিষ্টানকে জরিমানা শ্রীমঙ্গলে স্কুলছাত্রের উপর হামলার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন মৌলভীবাজারে ট্রাফিক পুলিশের জন্য ব্যারাকের উদ্বোধন মৌলভীবাজারে ফিরছে করোনা, নতুন করে আক্রান্ত ২৯ জন কমলগঞ্জে জলাশয় থেকে নারীর মৃতদেহ উদ্ধার বিশ্বভালবাসা দিবসে আসছে চৌধুরী কামাল ও সালমার দ্বিতীয় ভার্সন প্রাণনাথ-২ জাতীয় সংসদে সভাপতিমন্ডলীর তালিকায় প্রথমস্থানে উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি

মশা যন্ত্রণায় নগরবাসী। দেরিতে হলেও অভিযোগের সুর যেনো পৌছালো নগরভবন পর্যন্ত

সিলেটভুমি প্রতিবেদক।।
  • সময় : বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৪৮ ৯৮ বার পঠিত

মশা যন্ত্রণায় নগরবাসী। দেরিতে হলেও অভিযোগের সুর যেনো পৌছালো নগরভবন পর্যন্ত। নগর কর্তৃপক্ষ এবার মশার ‘চালাকি’ বুঝতে পেরেছেন! তাই ‘মশা মারতে কামান দাগা’ নয়, এবার মিছিল নিয়ে মাঠে নেমেছেন নগর কর্তৃপক্ষ। এই মিছিলে নেতৃত্ব দিয়েছেন খোদ সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

তিনি হয়তো বুঝতে পেরেছেন, মশা তাড়াতে ‘শক্তি’ প্রয়োগের প্রয়োজন! তাই শনিবার (০৪ ডিসেম্বর) যথারীতি রাজনৈতিক কর্মসুচী সূচনার ন্যায় হযরত শাহজালাল (র.) দরগাহ এলাকা থেকে মিছিলটি বের করেন। মেয়রের নেতৃত্বে বের করা মিছিলে যোগ দেন একজন কাউন্সিলর এবং সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারি ও মশক নিধনকর্মীরা।

ব্যানারে উল্লেখ করা হয় মুজিববর্ষ উদযাপন উলক্ষে ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ কর্মসূচীর আওতায় সিলেট সিটি করপোরেশনে শুরু হয়েছে মাস ব্যাপি মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান। সিসিকের ১ নম্বর ওয়ার্ডে দরগা এলাকা থেকে শুরু হওয়া কর্মসূচী পর্যায়ক্রমে ২৭ টি ওয়ার্ডে পরিচালিত হবে বলেও জানানো হয়।

এই কর্মসূচীর উদ্বোধনকালে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নগরবাসির সহযোগিতা চাইলেন মশক নিধন ও পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান সফলে।

মেয়র তাঁর বক্তব্যে নগরবাসীকে নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা আবর্জনা ফেলতে অনুরোধ করেন, তাতে পরিচ্ছন্নতার কাজ আরো দ্রুত সময়ে করা সম্ভব হবে। কোন অবস্থাতেই বাসা-বাড়ির আশ পাশের খোলা স্থান, ড্রেন বা ছড়ায় আবর্জনা না ফেলতে অনুরোধ করেন এবং মশক নিধন অভিযানে ফগার মেশিন ও স্প্রে দ্বারা ওষধ ছিটানো হচ্ছে বলেও জানান দেন। বিশেষ করে ডেঙ্গু মশার উৎস অনুসন্ধান ও নিধনে নাগরিকদের বিশেষ ভূমিকা পালন করতে হবে তাগিদ দিয়ে বলেন, ডেঙ্গু বাসা বাড়ির ভেতরের বিভিন্ন স্থানে বংশ বিস্তার করে।

তাছাড়া ডেঙ্গুর উৎসের সন্ধান পেলে দ্রুত সিলেট সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগে জানানোর আহবান জানান তিনি।

তবে মশার যন্ত্রণায় অতিষ্ট নগরবাসীর যখন ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। তা দেখে যেনো এতোদিন বাহাস কুঁড়িয়েছেন নগর ভবনে বসে থাকা লোকজন। এমন অভিযোগ তুলে নগরীর বাসিন্দাদের কয়েকজন বলেন, মশা তাড়াতে মেয়রের এই উদ্যোগ যেনো ‘শক্তির মহড়া’। উন্নয়নের ধুলোয় ধুসর নগরীতে মশা নিধনের উদ্যোগ ‘আইওয়াশ’ মনে করছেন তারা।

ভোক্তভোগীদের অভিযোগ, পরিবেশ পরিস্কার রাখার দায়িত্ব আমাদেরই। কিন্তু নালা নর্দমা, খাল-ডোবায় মশা প্রজনন হচ্ছে সিসিকের বেখেয়ালে। সেটা খেয়ালতো রাখতে পারেন তারা?

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সিলেট সিটি করপোরেশনে নির্দিষ্ট সংখ্যক জনবল মশার নিয়ন্ত্রনের কাজের জন্য বেতন নিয়ে থাকেন। চাকুরী মশা নিধনে বা নিয়ন্ত্রনের জন্য হলেও তাদের অনেকেই অজানা। তাছাড়া মশা নিধনে বাজেট আসে-যায়। কিন্তু কার্যকরী উদ্যোগের যেনো বড়ই অভাব রয়েছে নগর কর্তৃপক্ষের।

সিসিক সূত্র জানায়, মশক নিধনে গত ২০২০-২১ অর্থ বছরে কোটি টাকার ওষুধ কিনেছিল সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। গত এপ্রিলের দিকে মশা নিধনে দুই দফা সেগুলো ব্যবহার করা হয়।  বছরের এপ্রিল থেকে দুই দফা মশা নিধনে অভিযান চালায় সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)।এরপর গত ছয় মাস কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।

সূত্র জানায়,মশা নিধনে গত ছয় মাসে সিসিকের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা স্থায়ী কমিটির সভা হয়নি। আর সভা হলেও ধারাবাহিক পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয় না। ফলে পরিস্থিতি আগের অবস্থায় ফিরে যায়। বেড়ে চলে মশার উৎপাত। তাই হুট করে নেওয়া কোনো পরিকল্পনাই কাজে আসে না।

এ বিষয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম বলেন, টেমিফস-৫০ইসি ও এডাল্টি মেলাথিয়েনো ই-টেন্ডারে মার্শাল এগ্রো সরবরাহ করে। আর এ ওষুধ দেশে আমদানি করে টেমিফস বাংলাদেশ। ২০২০-২১ অর্থ বছরের ৮৯ লাখ টাকার কেনা হয়। ভ্যাট-ট্যাক্সসহ কোটি টাকার উপরে ছিল মশার ওষুধ কেনার বাজেট। এরমধ্যে লার্ভি সাইজের জন্য ৫ হাজার এবং এডাল্টি মশার জন্য ১০ হাজার লিটার ওষুধ কেনা হয়। গত এপ্রিল পর্যন্ত ২ রাউন্ড ওষুধ ছিটানো হয়েছে।

তিনি বলেন, কেনা ওষুধ থেকে বর্তমানে ২ হাজার লিটার লার্ভি এবং এডা্ল্টি ৬ হাজার লিটার  আগামি ২/৩ মাস ব্যবহার করা হবে। এরপর আবার টেন্ডারে ওষুধ কিনতে হবে। পর্যায়ক্রমে ২৭ টি ওয়ার্ডে মশক নিধন অভিযান চলবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
🔻 আরও পড়ুন