1. admin@sylhetbhumi24.com : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:০০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
শ্রীমঙ্গলে হাজী সেলিম ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয় উদ্বোধন আব্দুস শহীদ এমপির রোগমুক্তিতে উপজেলা প্রশাসনের দোয়া মাহফিল শ্রীমঙ্গলে গাঁজাসহ এক যুবক আটক জুড়ীতে ভোক্তা-অধিকার অভিযানে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ীর জরিমানা শ্রীমঙ্গল শহর সিসিটিভি স্থাপন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক মত বিনিয়র সভা চা শ্রমিকদের ২৬ লক্ষ টাকা অনুদান বিতরণ করলো চা বোর্ড শ্রীমঙ্গলে অবাধে বালুবহন গাড়ি চলাচল বন্ধ দূর্ঘটনা জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ওসি তদন্ত হুমায়ুনের মানবিকতা বেঁচে গেল ভারসাম্যহীন গর্ভবতী তরুণী ও পুত্র সন্তান ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত, শ্রীমঙ্গলে প্রীতম দাশ গ্রেফতার শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশের সহযোগিতায় পাগলী চুমকীর কোলে এখন ফুটফুটে শিশু
শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে হাজী সেলিম ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয় উদ্বোধন আব্দুস শহীদ এমপির রোগমুক্তিতে উপজেলা প্রশাসনের দোয়া মাহফিল শ্রীমঙ্গলে গাঁজাসহ এক যুবক আটক জুড়ীতে ভোক্তা-অধিকার অভিযানে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ীর জরিমানা শ্রীমঙ্গল শহর সিসিটিভি স্থাপন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক মত বিনিয়র সভা চা শ্রমিকদের ২৬ লক্ষ টাকা অনুদান বিতরণ করলো চা বোর্ড শ্রীমঙ্গলে অবাধে বালুবহন গাড়ি চলাচল বন্ধ দূর্ঘটনা জড়িতদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন ওসি তদন্ত হুমায়ুনের মানবিকতা বেঁচে গেল ভারসাম্যহীন গর্ভবতী তরুণী ও পুত্র সন্তান ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত, শ্রীমঙ্গলে প্রীতম দাশ গ্রেফতার শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশের সহযোগিতায় পাগলী চুমকীর কোলে এখন ফুটফুটে শিশু

দক্ষিণ সুরমায় শিলং তীর বন্ধ হচ্ছে না কেন..? জুয়ারি কাশেমের খুঁটির জোর কোথায়

প্রশাসন
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ২৫ আগস্ট, ২০২২
  • ৪০৯ ৯৮ বার পঠিত

হলি সিলেট ডেস্ক ঃ

সিলেটের দক্ষিণ সুরমার শাদুরবাজার বাশপালা মার্কেটে তীর সিলং নাইট তীর মিলের পিছনে ও সেলুনের বসে টোকেনে নামলেখা ও ফি আাদয় চলছে শাদুরবাজার বাশপালা মার্কেটে ও কুমিল্লা পট্টিতে কাশেমের দাপট মাদক ও সিলং তীর ও নাইট তীর খেলা চলছে রাত দিন অথছ প্রশাসন রয়েছে নিরব মনেহচ্ছে এসব অপকর্ম দেখার কেউ নেই।
সিলেটের আরেক নরককুণ্ড দক্ষিণ সুরমার বাশপালা মার্কেটে ও কুমিল্লাপট্টি খেয়া গাট ও সিএনজিতে বসে বাসপালা মারকেটের সেলুনে বসে এখন চলছে টোকেন লেখা ও ফি আদায় হয়। সুমন আকাশ ও রানা আকাশের সাতে হলি সিলেট পত্রিকার প্রতিনিধির আলাপ হলে তারা বলে আমাদের কে কাশেম ভাই দেখবে, পুলিশ আমাদে কাশেম ভাইর লোক আমাদে কোন কিছু হবে না দেখছেন কাল (ডিবি) আমাদের লোক ধরে নিছে আজ আদালত থেকে নিয়ে আইছে মালেক ও আতিক ও বদরুল তাদের কে আমাদের কাশেম ভাই সব দেখবে কাশেম ভাইর হাত অনেক লম্বা। এ দিকে সিলেট মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অভিযানে তীর শিলং খেলার সামগ্রীসহ ০৩ জুয়ারী গ্রেফতারঃ
গত ২২/০৮/২০২২ মহানগর গোয়েন্দা বিভাগের পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) জনাব অলক কুমার দত্ত এর নেতৃত্বে মোঃ আতিকুর রহমান, কর্মস্থল মহানগর গোয়েন্দা বিভাগ, এসএমপি, সিলেট মোটরযান শাখা, এসএমপি, সিলেট-দের নিয়ে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের টহলরত টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসএমপি দক্ষিণ সুরমা থানাধীন বাশপালা মার্কেটে সাধুর বাজারস্থ পুরাতন রেল কলোনীর ভিতরে অভিযান পরিচালনা করে আসামী ১। মোঃ মালেক (২৭), পিতা- মৃত আঃ কুদ্দুছ, মাতা- মৃত ছালেহা বেগম, সাং- বরইকান্দি, থানা- দক্ষিণ সুরমা, জেলা- সিলেট, বর্তমানে- রায়হানের দোকান, রেল কলোনী, থানা- দক্ষিণ সুরমা, জেলা- সিলেট, ২। মোঃ আতিক মিয়া (৪৮), পিতা- মৃত আলী আকবর, মাতা- মনোয়ারা বেগম, সাং-বরইকান্দি, থানা- দক্ষিণ সুরমা, জেলা- সিলেট, ৩। বদরুল ইসলাম (৩৩), পিতা- মৃত মঈন উদ্দিন, মাতা- রূপজান বিবি, সাং- উত্তর বিপক, থানা- জকিগঞ্জ, জেলা- সিলেট বর্তমানে সাং- কয়ছর মিয়ার কলোনী, বরইকান্দি, থানা- দক্ষিণ সুরমা, জেলা- সিলেট নামীয় ০৩ (তিন) জুয়ারীকে গ্রেফতার করেন। গ্রেফতারকালে উক্ত আসামীর হেফাজাত হতে তীর শিলং জুয়া খেলার বিভিন্ন সামগ্রীসহ উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়। কাশেমের এত দাপট কেন তাকে পুলিশ ধরে না?
দক্ষিণ সুরমা থানা অনেক দূর হলেও কদমতলী পুলিশ ফাঁড়ির দূরত্ব খুব বেশি না। হতে পারে কয়েকশ’ গজ। আর কোতোয়ালী থানা থেকে দূরত্ব বলতে মাত্র সুরমা নদী। ওটা পার হলেই দক্ষিণ সুরমার ভার্থখলা এলাকার কুমিল্লাপট্টি ও বাশপালা মার্কেট। সিলেটের আরেক মাদক ও শিলং তীর ও নাইট তীর নরককুণ্ড । নোংরা স্যাঁতস্যাঁতে এই পট্টিতে তীর নাইট তীর মদ জুয়া থেকে শুরু করে এমন কোন অসামাজিক কাজ নেই যা এই পট্টিতে হচ্ছেনা। আর সবকিছু হচ্ছে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে- এমন একটা কুমিল্লাপট্টি ও বাশপালা মারকেট থেকে শুরু করে গোটা ভার্থখলা এলাকাতে ব্যাপক প্রচারিত।
সিলেট মহানগর পুলিশের দক্ষিণ সুরমা থানার ভার্তখলা এলাকার কুমিল্লাপট্টির ও বাশপালা মার্কেটে অধিকাংশ জমিই বাংলাদেশ রেলওয়ের। তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন ব্যক্তি জমি লিজ নিয়ে কলোনি গড়ে তুলে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান স্থানীয়রা।
গত কযেক বছর ধরে কুমিল্লাপট্টিতে ও বাশপালা মার্কেট মদ গাঁজা ইয়াবা ব্যবসার বিষয়টি প্রায় অপেন সিক্রেট। তবে তীর জুয়া ও নাইট তীর চলছে কোন রাখঢাক ছাড়াই। প্রায় প্রতিদিন বিকেল দুইটার পর ও রাতে থেকে প্রকাশ্যে বেঞ্চে কাগজ কলম নিয়ে বসে থাকেন জুয়ার দুটি বোর্ডের পরিচালক ও ম্যানেজাররা। টোকেনে নাম লেখা ও ফি আদায় করেন তারা। এলাকার সর্বস্থরের লোকজন বিশেষ করে বড়লোক হওয়ার ইচ্ছায় লাইন ধরে জুয়ায় অংশ নিচ্ছেন। তাদের দু’ একজন সামান্য কিছু জিতলেও অধিকাংশকেই আবার ফিরতে হয় মাথার চুল ছিঁড়তে ছিঁড়তে। কারও আবার চোখ ছল ছল। এটাই হচ্ছে প্রতিদিনের চিত্র।
সরজমিনে বাশপালা মার্কেট ও কুমিল্লাপট্টি ঘুরে জানা গেছে, এই পট্টিতে কাশেম ও জামাল মজনুর দুটি তীর জুয়ার দান চলছে দীর্ঘদিন থেকে। কাশেমের ম্যানেজার জামাল আর মজনুর অন্তর নামক এক যুবক।
তবে অন্তর জানান, মজনু এখন বিদেশ যাত্রী। তাই তার দান এখন আর চলেনা।
তবে একথা মানতে রাজী নয় কাশেমের ম্যানেজার জামাল। তিনি নিজে যে কাশেমের ম্যানেজার এবং তার হয়ে যে কুমিল্লাপট্টিতে নিজেই তীর ও নাইট তীর জুয়ার বোর্ড চালাচ্ছেন তা স্বীকার করলেন সদম্ভে। বললেন, আপনার মতো অনেক প্রশাসন ও সাংবাদিক ম্যানেজ করে জুয়ার দান চলছে।
জামাল জানান, এখানে মজনু নামে আরেকজনের একটা জুয়ার বোর্ড চলছে। তিনি বিদেশ যাওয়ার কথা ছড়িয়ে দিয়ে গোপনে ঠিকই জুয়ার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন।
তবে একসময় মজনুর বোর্ডের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করা অন্তর নামক এক যুবক জানান, মজনুর বোর্ড এখন বন্ধ। তিনি বিদেশ চলে যাবেন। তাই আপাতত এসব বন্ধ।
এতো গেলো তীর জুয়ার গল্প। তবে আরও কাহিনী আছে সিলেটের অন্যতম প্রধান এই নরককুণ্ডের। এখানে মদ গাঁজা ইয়াবা সেবনও অনেকটা অপেন সিক্রেট। এসব কাজের সাথে জড়িতরা হলেন,জামাল কাশেম রেনু শরিফ ও ফরিদ। তারা তাদের লোকজন নিয়ে কুমিল্লাপট্টিতে ও বাশপালা মার্কেটে তীর শিলং নাইট তীর মাদক ব্যবসার সাথে চোরাই গরুর ব্যবসাও করে।কাশেমের এত দাপট কেন ? কি কারনে কাশেম সহ এসব তীর ও জুয়া মাদকের হাটের চিহ্নিত অপরাধীদের কেন গ্রেফতার করা হয় না? কিংবা এসব অপরাধীরা কি করে এত বেপরোয়া ভাবে প্রশাসনের সামনেই অপরাধ করে বেড়ায় এমনটাই প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ মানুষ।

সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
🔻 আরও পড়ুন